২১ শে এপ্রিল, ২০২১ থেকে, জনপ্রতি ৯০০ টাকা অতিরিক্ত ফিতে, পাসপোর্ট/ডকুমেন্ট প্রিমিয়াম (হোম) ডেলিভারির মাধ্যমে সংগ্রহ করা যাবে, যা কেবল নগদে প্রদানযোগ্য । এই পরিষেবার জন্য, পাসপোর্ট/ডকুমেন্ট সংগ্রহ করার সময় কুরিয়ারের নিকট অর্থ প্রদান করতে হবে। এই পরিষেবাটি বাধ্যতামূলক নয়। আরো তথ্যের জন্য, এখানে ক্লিক করুন। প্রিমিয়াম (হোম) ডেলিভারি সার্ভিসের সম্পর্কে আরও স্বচ্ছ তথ্যের জন্য আপনি সবসময় জিজ্ঞাসা করা হয়ে থাকে এমন প্রশ্ন সমুহ পৃষ্ঠাতেও যেতে পারেন।


৯ ই মে থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং সিলেটের ডকুমেন্ট ডেলিভারি কেন্দ্রগুলি নিয়মিত সময় অনুযায়ী কার্যক্রম পুনরায় শুরু করেছে। যে পাসপোর্ট/ডকুমেন্ট গুলো ঢাকা কেন্দ্রে রাখা হয়েছিল, তা সংশ্লিষ্ট স্থানে প্রেরণ করা হয়েছে। পাসপোর্ট/ডকুমেন্ট সংগ্রহের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেলে, আবেদনকারীকে ইমেল এবং এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে।


বাংলাদেশ সরকারের আরোপিত দেশব্যাপী লকডাউনের কারণে, ঢাকায় অবস্তিত মার্কিন দূতাবাস ০৫ ই এপ্রিল ২০২১ থেকে ১৬ ই মে ২০২১ পর্যন্ত সমস্ত অভিবাসী এবং অন-অভিবাসী ভিসার নির্ধারিত সাক্ষাৎকার বাতিল করেছে। অধিকন্তু, ০৬ ই মে থেকে ৩০ শে জুন ২০২১ সালের মধ্যে নির্ধারিত সমস্ত বি১/বি২ ভিসা অ্যাপয়েন্টমেন্ট ও বাতিল করা হয়েছে।

ভিসা ফি যে দেশে প্রদান করা হয়েছিল, সে দেশে ফি প্রদানের দিন থেকে এক বছর অথবা ৩০ শে সেপ্টেম্বর ২০২২ পর্যন্ত, এর মধ্যে যে তারিখ পরে হয়, তার পর্যন্ত ভিসা ফির মেয়াদ থাকবে এবং ভিসা ফি ব্যবহার করা যেতে পারে। আপনার যদি জরুরি প্রয়োজন হয় এবং অবিলম্বে ভ্রমণের প্রয়োজন হয়,তবে জরুরি অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য অনুরোধ করতে দয়া করে নিম্নলিখিত লিঙ্কে প্রদত্ত নির্দেশিকা অনুসরণ করুন https://www.ustraveldocs.com/bd/bd-niv-expeditedappointment.asp


ঢাকায় অবস্তিত মার্কিন দূতাবাস অন-অভিবাসী ভিসার প্রক্রিয়াকরণ পুনরায় শুরু করেছে এবং সমস্ত অভিবাসী ভিসার প্রক্রিয়াকরণ অব্যাহত রাখবে। অভিবাসী ভিসা আবেদনকারীদের জন্য, রাষ্ট্রপতি ঘোষিত ইশতেহার ১০০১৪ বাতিল করা হয়েছে। অভিবাসী ভিসা আবেদনকারীরা যারা এই ঘোষণার দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল তাদের এখানে নির্দেশাবলী পর্যালোচনা করা উচিত। যদিও মার্কিন দূতাবাস যত দ্রুত সম্ভব আবেদনপত্রগুলি প্রক্রিয়াকরণের লক্ষ্য রাখে কিন্তু যথেষ্ট পরিমাণে আবেদনপত্র জমে থাকার কারণে এই ধরনের পরিষেবাগুলি সম্পন্ন করার সময় বাড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। ভিসা ফি যে দেশে প্রদান করা হয়েছিল, সে দেশে ফি প্রদানের দিন থেকে এক বছর পর্যন্ত মেয়াদ থাকবে এবং ভিসা ফি ব্যবহার করা যেতে পারে। আপনার যদি জরুরি প্রয়োজন হয় এবং অবিলম্বে ভ্রমণের প্রয়োজন হয়,তবে জরুরি অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য অনুরোধ করতে দয়া করে নিম্নলিখিত লিঙ্কে প্রদত্ত নির্দেশিকা অনুসরণ করুন https://www.ustraveldocs.com/bd/bd-niv-expeditedappointment.asp


সেক্রেটারি ব্লিংকেন, ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিওরিটি সাথে পরামর্শ করে একই শ্রেণীতে অন-অভিবাসী ভিসার আবেদনকারীদের ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকারের প্রয়োজনীয়তা মওকুফ করার জন্য কনস্যুলার অফিসারদের ক্ষমতা সাময়িকভাবে প্রসারিত করেছেন। পূর্বে,কেবলমাত্র সেইসব আবেদনকারীরা সাক্ষাৎকার মওকুফের জন্য যোগ্য ছিল, যাদের অন-অভিবাসী ভিসা ২৪ মাসের মধ্যে শেষ হয়ে গেছে । সেক্রেটারি, ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার সময়কাল অস্থায়ীভাবে ৪৮ মাস পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছেন। এই নীতিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। এই পরিবর্তন কনস্যুলার অফিসারদের নির্দিষ্ট অন-অভিবাসী ভিসা আবেদনের প্রক্রিয়াকরণ চালিয়ে যাওয়ার জন্য সাহায্য করবে এবং কনস্যুলার বিভাগে উপস্থিত হওয়া আবেদনকারীদের সংখ্যা সীমাবদ্ধ রাখার ফলে অন্যান্য আবেদনকারী এবং কনস্যুলার ব্যক্তিবর্গের কোভিড-১৯ এ সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করবে। বর্তমানে কোন পরিষেবাগুলি পাওয়া যায় তার পাশাপাশি সাক্ষাৎকার মওকুফের যোগ্যতার তথ্য এবং সাক্ষাৎকার ছাড়াই ভিসার জন্য আবেদনের করার নির্দেশাবলী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভ্রমণকারীদের নিকটতম মার্কিন দূতাবাস বা কনস্যুলেটের ওয়েবসাইট পর্যালোচনা করতে উৎসাহিত করা হচ্ছে ।


বাংলাদেশের মার্কিন দূতাবাস অবগত যে, অনেক ভিসা আবেদনকারীরা ভিসা আবেদনের প্রক্রিয়াকরণ ফি প্রদান করেছে এবং এখনও ভিসার সাক্ষাৎকারের সময় নির্ধারণের জন্য অপেক্ষা করছে। যথাসম্ভব দ্রুত এবং নিরাপদে সকল নিয়মিত ভিসা কার্যক্রম পুনরায় চালু করার জন্য আমরা নিরলস ভাবে কাজ করছি। এরই মধ্যে,মার্কিন দূতাবাস আশ্বস্ত করছে যে,নিয়মিত ভিসা কার্যক্রম স্থগিতের ফলে যারা ভিসা সাক্ষাতকার নির্ধারণ করতে পারেনি সে সকল আবেদনকারীকে পূর্ব প্রদানকৃত ভিসা ফি ব্যবহার করে একটি ভিসা সাক্ষাতকারের দিন ধার্য করণ এবং/অথবা সাক্ষাতকারে উপস্তিতির সুযোগ করে দেয়ার জন্য আপনার ভিসা ফি এর মেয়াদ (এমআরভি ফি হিসাবে পরিচিত) ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়া হবে। আমরা কখন পুনরায় নিয়মিত ভিসা কার্যক্রমে ফিরে আসব সে সম্পর্কে তথ্যের জন্য দয়া করে এই সাইটটি পর্যবেক্ষণ করবেন।


রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রগুলি (সিডিসি) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশকারী সমস্ত বিমান যাত্রীদের প্রস্থানের ৭২ ঘন্টার মধ্যে নেওয়া একটি নেগেটিভ কোভিড-১৯ পরীক্ষা (SARS-CoV-2 এর জন্য জাতীয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত একটি ভাইরাল সনাক্তকরণ পরীক্ষা) উপস্থাপন করতে হবে যা ২৬ শে জানুয়ারি থেকে কার্যকর। যাত্রা শুরুর পূর্বে অবশ্যই সমস্ত যাত্রীদের নেগেটিভ পরীক্ষার ফলাফল বিমান সংস্থার নিশ্চিত করতে হবে। যদি যাত্রীরা কোনও নেগেটিভ পরীক্ষা বা সুস্থতার ডকুমেন্টেশন প্রদান না করে তবে বিমান সংস্থা যাত্রীদের যাত্রা প্রত্যাখ্যান করবে। এই প্রয়োজনীয়তা ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া থেকে পৃথক। কোভিড-১৯ এর কারণে ভ্রমণকে সীমাবদ্ধ করে রাখা সমস্ত রাষ্ট্রপতি ঘোষিত ইশতেহার বহাল রয়েছে এবং সে সমস্ত সম্ভাব্য ভ্রমণকারীদের উপর নেগেটিভ কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফল বা টিকার নেওয়া সত্ত্বেও তা অবিরত থাকবে। জাতীয় স্বার্থ ভ্রমণকারী যাত্রী সমূহেরও যাত্রার পূর্বে পরীক্ষার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। পরীক্ষার প্রয়োজনীয়তা মওকুফ সম্পর্কিত আরও তথ্যের জন্য দয়া করে এখানে ক্লিক করুন।


রাষ্ট্রপতি বাইডেন ২৪ শে ফেব্রুয়ারী, ২০২১ এ “কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমবাজারে ঝুঁকি হিসেবে বিবেচিত অভিবাসীদের প্রবেশ স্থগিতকরণ " শিরোনামে ঘোষিত ইশতেহার (পিপি) ১০০১৪ বাতিল করেন। অভিবাসী ভিসা আবেদনকারীরা যারা এই ঘোষণার দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল তাদের এখানে নির্দেশাবলী পর্যালোচনা করা উচিত।


রাষ্ট্রপতি ঘোষিত ইশতেহার ১০০৫২, যা সাময়িক সময়ের জন্য নির্দিষ্ট এইচ-১ বি, এইচ-২ বি, জে (এক্সচেঞ্জ ভিজিটার প্রোগ্রামের মধ্যে নির্দিষ্ট বিভাগের জন্য) এবং এল নন-অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ স্থগিত করেছিল, তার মেয়াদ ৩১ শে মার্চ ২০২১ এ উত্তীর্ণ হয়েছে।

যে সমস্ত ভিসা আবেদনকারীদের এখনও সাক্ষাত্কার নেওয়া হয়নি বা সাক্ষাত্কারের জন্য নির্ধারিত হয়নি, তাদের আবেদনগুলিকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে এবং বিদ্যমান ভিসা পরিষেবাদির পর্যায়ক্রমে পুনরায় শুরু করার গাইডেন্সের অনুসারে তা প্রক্রিয়াকরণ করা হবে। রাষ্ট্রপতি ঘোষিত ইশতেহার ১০০৫২ এর বিধিনিষেধের কারণে যে সমস্ত ভিসা আবেদনকারীদের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল, তারা নতুন ফি সহ একটি নতুন আবেদন জমা দিয়ে পুনরায় আবেদন করতে পারবেন।


রাষ্ট্রপতি-ইশতেহার ৯৯৮৪, ৯৯৯২, ১০১৪৩ এবং ৩০ এপ্রিল, ২০২১ এ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, বিদেশী নাগরিক যারা তাদের প্রবেশের পূর্ববর্তী ১৪ দিনের মধ্যে অথবা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করার পূর্বে নিম্নলিখিত দেশের তালিকার মধ্যে অবস্থানরত ছিলেন, তাদের প্রবেশ স্থগিত করা হয়েছে ।

  • ভারত (কেবল নন-অভিবাসীদের জন্য প্রযোজ্য);
  • দক্ষিন আফ্রিকা;
  • ব্রাজিল
  • গ্রেইট ব্রিটেন এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের যুক্তরাজ্য; ইউরোপের বাইরের বিদেশী অঞ্চলসমূহ অন্তর্ভুক্ত নয়।
  • রিপাবলিক অফ আয়ারল্যান্ড
  • শেনজেন অঞ্চল নিয়ে গঠিত ২৬ টি দেশসমূহ (অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, গ্রীস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, ইতালি, লাটভিয়া, লিচেনস্টেইন, লিথুয়ানিয়া, লুক্সেমবার্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, স্লোভেনিয়া, স্পেন, সুইডেন এবং সুইজারল্যান্ড)
  • ইসলামীক প্রজাতন্ত্র ইরান; এবং
  • গণপ্রজাতন্ত্রী চীন; হংকং এবং ম্যাকাওয়ের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ ব্যতীত।

প্রবেশাধিকার স্থগিতকরণ প্রক্রিয়ার মধ্যে কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে, যা ইশতেহারে অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য ব্যতিক্রমগুলি ছাড়াও মার্কিন বৈধ স্থায়ী বাসিন্দা, মার্কিন নাগরিকদের কিছু নির্দিষ্ট পরিবার সদস্য এবং বৈধ স্থায়ী বাসিন্দাদের ক্ষেত্রেও কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে । আপনি যদি অবস্থানরত থাকেন, সম্প্রতি ভ্রমণ করেছেন, বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আপনার পরিকল্পিত ভ্রমণের আগে উপরের উল্লেখিত দেশগুলির তালিকায় ভ্রমণ অথবা ট্রানজিট করার ইচ্ছা পোষণ করছেন, সেক্ষেত্রে আমরা আপনাকে উল্লেখিত দেশ (সমূহ) থেকে প্রস্থান করার পরবর্তী ১৪ দিন পর্যন্ত ভিসা সাক্ষাৎকার আবেদন পেছানোর জন্য পরামর্শ দিচ্ছি। উপরন্তু, আপনি যদি জ্বর জ্বর অনুভব করেন অথবা মনে করেন যে আপনি নভেল করোনা ভাইরাসটির সংস্পর্শে এসেছেন, তবে কমপক্ষে ১৪ দিন পর্যন্ত আপনার ভিসা সাক্ষাৎকার আবেদন স্থগিত করার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে। অতিরিক্ত তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন


জানুয়ারী ২০, ২০২১ সালে রাষ্ট্রপতি বাইডেন "যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে বৈষম্যমূলক নিষেধাজ্ঞার সমাপ্তি" শীর্ষক একটি রাষ্ট্রপতি ইশতেহার স্বাক্ষর করেন। এই ঘোষণার মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি ইশতেহার ৯৬৪৫ এবং ৯৯৮৩ এর মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাসমূহ বাতিল করে যা বর্মা, ইরিত্রিয়া, ইরান, কিরগিজস্তান, লিবিয়া, নাইজেরিয়া, উত্তর কোরিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া , তানজানিয়া, ভেনিজুয়েলা এবং ইয়েমেন থেকে ভিসা প্রকারের ভিত্তিতে নির্দিষ্ট কিছু নাগরিকের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ স্থগিত করেছিল। অতিরিক্ত তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন।


কনসুলার বিনিময় হার প্রচলিত রূপান্তর হারের উপর ভিত্তি করে পর্যায়ক্রমে সংশোধন করা হয় ।আপনি অর্থপ্রদান করার আগে, দয়া করে যাচাই করুন যে আপনার ডিপোজিট স্লিপের ভিসা ফি এর পরিমানের সাথে ভিসা ফি পৃষ্ঠাতে তালিকাভুক্ত বর্তমান কনসুলার বিনিময় হার মিলেছে।


মেশিন রিডেবল ভিসা (এম আর ভি) ফি অবশ্যই নগদ অর্থে পরিশোধ করতে হবে। যদিও ইউ এস ডলারে ফি এর পরিমান উল্লেখ করা আছে, তারপরেও ফি অবশ্যই বাংলাদেশি টাকায় পরিশোধ করতে হবে। কোন মাস্টার অথবা ক্রেডিট কার্ড ফি জমা দেয়ার জন্য গ্রহনযোগ্য হবে না।আপনার মনোনীত ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ই বি এল) এর যে কোন শাখায় ফি প্রদান করতে পারবেন। ফি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য এখানে দেখুন। ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ই বি এল) এর শাখা সম্বন্ধে বিস্তারিত তথ্য এখানে দেখুন।


Mount Rushmore - South Dakota

বাংলাদেশে ইউ.এস ভিসা সংক্রান্ত তথ্য প্রদান সেবায় আপনাকে স্বাগত জানাই । ওয়েবসাইটটিতে আপনি ইউ. এস অভিবাসী এবং অ-অভিবাসী ভিসার বিষয়ে এবং এ ভিসার জন্য কিভাবে আবেদন করতে হয় সে বিষয়ে তথ্য পাবেন। আপনি এও জানতে পারবেন যে কিভাবে ভিসার জন্য আবেদনের প্রয়োজনীয় ফি প্রদান করতে হবে এবং কিভাবে বাংলাদেশের মার্কিন দূতাবাসে সাক্ষাতকারের সময় নির্ধারন করতে হবে।

এটি বাংলাদেশের ইউ.এস মিশনের ভিসা সংক্রান্ত তথ্যের সরকারি ওয়েবসাইট।

অন-অভিবাসী ভিসা তথ্য


অন-অভিবাসী ভিসা আবেদন


অভিবাসী ভিসা তথ্য